বুলবুল ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসছে উপকূলের দিকে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর নাম কে দিল?

0
647
বুলবুল ঝড় সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল
বুলবুল ঝড় সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল

বুলবুল ঝড় সম্পর্কে অজানা কিছু তথ্য, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল , Amazing facts about Bulbul in bangla,

বুলবুল ঘূর্ণিঝড় ধেয়ে আসছে উপকূলের দিকে। ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর নাম কে দিল?

 

ঝড়ের নাম বুলবুল, হ্যাঁ বন্ধুরা একদম ঠিক শুনেছেন।  আইলা এবং ফনির পর এবার ধেঁয়ে আসছে বুলবুল ।

বঙ্গোপসাগরের কেন্দ্রস্থল থেকে উৎপত্তি বুলবুল খুবই ভয়ঙ্কর এবং শক্তিশালী। ঘন্টায় ঘন্টায় ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার বেগে ধেয়ে আসছে উপকূলের দিকে।

এই ঘূর্ণিঝড় পশ্চিমবঙ্গের উপর দিয়ে সোজা বাংলাদেশ হয়ে যাবে। এই ঝড় পশ্চিমবঙ্গ এবং বাংলাদেশ উপকূল এর খুব কাজ দিয়ে বয়ে যাবে ।

তবে আপনাদের জানানোর উদ্দেশ্যে বলে রাখি। আজকের এই ব্লগে আমরা বুলবুল সম্পর্কে অনেক অজানা তথ্য আপনাদের জানাবো।

আপনার মাথায় হয়তো এমন প্রশ্ন জাগতে পারে ঝড়ের নাম বলবো তবে এই নাম কে দিয়েছে, কেনই বা দিয়েছে,

তবে তার আগে বলে রাখি গত ৪০ বছর ধরে ঘূর্ণিঝড় হয়েছে তার মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী ঝড় হচ্ছে এই বুলবুল। কিন্তু এখন প্রশ্ন হলো এই ঝড়ের নাম বুলবুল কেন হল,

আসলে সর্বপ্রথম আবহাওয়া দপ্তর ঝড়ের নাম দেওয়ার রীতি শুরু করে ২০০৪ সালে সর্বপ্রথম ভারতের নাম দেওয়ার প্রচলন করে।

সাথে সাথে প্রতিবেশী দেশগুলো ঝড়ের নামকরণ করে  মেট্রলজিক্যাল অরগানাইজেশন ঝড়ের পরিস্থিতি বুঝে ঝড়ের নামকরণ করা হয়ে থাকে।

এর আগে যে ফনি নামের ঝড় উঠেছিল তার নামকরণ করেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু এবারের বুলবুল নামে ঝড়ের নাম কি দিয়েছেন পাকিস্তানের তরফ থেকে । এক ধরনের পাখির নাম খেকেই এর নাম রাখাহয়। এই প্রসঙ্গে আবহাওয়া দপ্তর ঝড়ের নাম রাখার পেছনে চর্চিত ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

একটি স্থানে ঝড়ের নামকরণ করার দায়িত্ব ভিন্ন ভিন্ন প্রতিষ্ঠান হাতে। উত্তর ভারত মহাসাগরের নামকরণ করে থাকে ভারতের আবহাওয়া দপ্তর। এশিয়া মহাসাগর এর সৃষ্ট আটটি ঝড়ের নাম করেন ভারতের আবহাওয়া দপ্তর ।এবারের ঘূর্ণিঝড়ের নাম কি আটটি দেশের দেওয়া 64 টি নামের মধ্যে একটি হলো বুলবুল ।

যেটা দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানের তরফ থেকে ।

তবে এখন জেনে নিন এরকম দ্রুতগতিসম্পন্ন ঘূর্ণিঝড় আসলে আপনার কি করনীয়। প্রথমত আপনাকে এরকম পরিস্থিতিতে ঘর থেকে বের না হওয়া ভালো, তবে তার আগে আপনার বাড়ির বিদ্যুৎ লাইন অফ করে দিতে হবে অর্থাৎ থেকে বিচ্ছিন্ন করতে হবে।

আর এই রকম পরিস্থিতিতে আপনার বাড়িতে কেউ আশ্রয় চায় তাহলে অবশ্যই তাকে আশ্রয় দিবেন। মোকাবেলা না করতে পেরে যদি কোন অবলা প্রাণী আপনার বাড়িতে এসে কিংবা আপনার বাড়ির বারান্দায় এসে আশ্রয় নেয় তাহলে তাকে তাড়িয়ে দেবেন না,  কারণ আপনার এই ছোট্ট প্রাণীটির জীবন বেঁচে যেতে পারে আপনি যতটুকু পারেন একে অপরকে সাহায্য করবেন।

এমনকি অযথা কোনো ভুল খবর ছড়াবেন না ।অন্যেরা বিভ্রান্ত এর মধ্যে পড়ে সাধারণ মানুষকে কখনোই ভুল সংবাদ দিবেন না।

বন্ধুরা আজকের মত এটুকুই তথ্য দেওয়ার ছিল যদি আমাদের এই ব্লগ টি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই শেয়ার করার অনুরোধ রইলো ধন্যবাদ সবাইকে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here